মঙ্গলবার, ২০ ফেব্রুয়ারি, ২০১৮
রংপুরে ছাত্রাবাসে ঝুঁকি নিয়ে বাস করছেন শিক্ষার্থীরা
রংপুর ব্যুরো
Published : Friday, 2 February, 2018 at 4:34 PM

সাত বছর আগে পরিত্যক্ত ঘোষণা করা রংপুর সরকারি কলেজের শহীদ মোসলেম উদ্দিন ছাত্রাবাসে জীবনের ঝুঁকি নিয়ে বসবাস করছেন ৬০ শিক্ষার্থী। অথচ ভবনটির অবস্থা এতটাই নাজুক যে, সামান্য দুর্যোগেই ভবন ধসে ঘটতে পারে প্রাণহানির ঘটনা।

এদিকে শিক্ষা প্রকৌশল অধিদফতর ও রংপুর সিটি করপোরেশনের পক্ষ থেকে ভবনটি পরিত্যক্ত ঘোষণা করা হলেও ভবন সংস্কার ও নির্মাণে কার্যকর পদক্ষেপ গ্রহণ করেনি সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ। অবিলম্বে ঝুঁকিপূর্ণ এই ভবনটি ভেঙে মানসম্মত ছাত্রাবাস নির্মাণের দাবি জানিয়েছেন সাধারণ শিক্ষার্থীরা।

সরেজমিনে ছাত্রাবাসটির বিভিন্ন কক্ষ ঘুরে দেখা যায়, কক্ষগুলোর ভেতরে স্যাঁতসেঁতে পরিবেশ, নেই পর্যাপ্ত আলো। দেয়ালজুড়ে জন্মেছে নানা আগাছা, পলেস্তারা খসে পড়ে উঁকি দিচ্ছে দেয়ালের ইট। কোনো কোনো কক্ষে নেই জানালা। দরজাগুলো আছে নামমাত্র। ছাদের কংক্রিট ভেঙে বেরিয়ে পড়েছে জংধরা রড। চারদিকে ভুতুরে পরিবেশ। দুর্ঘটনা এড়াতে কিছু কক্ষে টিনশেড দিয়ে রাখা হয়েছে। বসবাসের অনুপযোগী ওই কক্ষগুলোতে দুই থেকে চারজন করে ছাত্র থাকছেন। এক কথায় বয়সের ভারে ন্যুব্জ এক কালের এই জমিদার বাড়ি যেকোনো মুহূর্তেই ধসে পড়ার আশঙ্কা রয়েছে।
 
ঠিক কবে ভবনটি নির্মাণ করা হয়েছিল সে সম্পর্কে পরিষ্কার কোনো তথ্য পাওয়া না গেলেও পারিপার্শ্বিক অবস্থা বিশ্লেষণ করে জানা গেছে, কমপক্ষে দু’শ বছর আগে এক একর জায়গা নিয়ে নির্মিত হয় বামনডাঙ্গা কালীধামের জমিদার গুরু প্রসন্ন লাহিড়ীর এই জমিদার বাড়ি। এক একরের মধ্যে ৫৪ শতক জায়গার ওপর নির্মাণ করা হয় ভবনটি। এক সময় সেখানে ছিল নাইট কলেজ। ১৯৬৩ সালে রংপুর সরকারি কলেজ প্রতিষ্ঠার পর এটি কিছুদিন কলেজ ক্যাম্পাস হিসাবেই ব্যবহার করা হয়। পরবর্তী সময়ে কলেজ বর্তমান অবস্থানে সরিয়ে নেওয়ার পর থেকেই আজ অবধি ওই ভবনটি ছাত্রাবাস হিসেবে ব্যবহার করা হচ্ছে। মুক্তিযুদ্ধে শহীদ রংপুর সরকারি কলেজের ছাত্র মোসলেম উদ্দিনের স্মরণে ছাত্রাবাসের নামকরণ করা হয় শহীদ মোসলেম উদ্দিন ছাত্রাবাস। শুরুতে ছাত্রাবাসে ১০০ ছাত্রের থাকার ব্যবস্থা ছিল। কিন্তু এখন কিছু কক্ষের অবস্থা এতটাই খারাপ যে সেগুলোতে আর কোনোভাবেই থাকার অবস্থা নেই। পারিবারিক অসচ্ছলতার কারণে অন্য কক্ষগুলোতে ঝুঁকি নিয়েই কোনো রকমে বসবাস করছেন ৬০ জন ছাত্র। ২০১১ সালে শিক্ষা প্রকৌশল অধিদফতর দু’দফায় ভবনটিকে পরিত্যক্ত ঘোষণা করে দুটি রুম সিলগালা করে দেয়। ‘ভবনটি বসবাসের জন্য নিরাপদ নয়’ বলে রংপুর সিটি করপোরেশনের পক্ষ থেকে ভবনের সামনে সাইনবোর্ড লাগিয়ে দেয়া হয়েছে।

এদিকে গণপূর্ত বিভাগ সূত্রে জানা যায়, সারাদেশের মধ্যে রংপুর ভূমিকম্প ঝুঁকির দিক দিয়ে রয়েছে এক নম্বরে। রংপুর মহানগরীর শতাধিক ভবন ঝুঁকির তালিকায় রয়েছে। আর এই ঝুঁকিপূর্ণ ভবনের তালিকার প্রথমেই রয়েছে এই মোসলেম উদ্দিন ছাত্রাবাস।

ঝুঁকিপূর্ণ এই ভবনে কেন অবস্থান করছেন এমন প্রশ্নের জবাবে ছাত্রাবাসে বসবাসকারী ছাত্র মাহমুদুল হাসান বলেন, মেসে থাকার খরচ বেশি। সেই খরচ চালানোর মতো আর্থিক সামর্থ্য না থাকায় আমরা অন্য জায়গায় যেতে পারছি না। তাই জীবনের ঝুঁকি নিয়ে এই ভবনে আছি। 

এই ছাত্রাবাসের জন্য কলেজ কর্তৃপক্ষ কোনো বরাদ্দ দেয় কি না, এমন প্রশ্নের জবাবে ছাত্রাবাসের মনিটরিংয়ের দায়িত্বে থাকা নাসির উদ্দিন বলেন, ছাত্রাবাসের জন্য কলেজ কর্তৃপক্ষের কোনো বরাদ্দ নেই। ছাত্রদের টাকায় এটি পরিচালিত হয়। তবে বিশেষ দিনগুলো পালনে কলেজ কর্তৃপক্ষ অনুদান দেয়।

সার্বিক বিষয় জানতে ছাত্রাবাসের তত্ত্বাবধায়ক কলেজের ইসলামের ইতিহাস বিভাগের প্রভাষক হারুন অর রশীদের সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন, ভবনটিকে পরিত্যক্ত ঘোষণা করার পর থেকে কলেজের পক্ষ থেকে এখানে থাকতে ছাত্রদের নিষেধ করা হয়েছে। তারপরও নিজ দায়িত্বে সেখানে থাকছে বেশ কিছু ছাত্র। মানবিকতার দিকটি বিবেচনা করে তাদের সেখান থেকে সরিয়ে দেওয়া যাচ্ছে না। বর্তমানে ঝুঁকি এড়াতে ছাত্রদের জন্য টিনশেডের ব্যবস্থা করে দেওয়া হয়েছে। 

রংপুর সরকারি কলেজের অধ্যক্ষ কানিজ উম্মে নাজমা নাসরিন বলেন, ছাত্রাবাসের জমিটি স্থায়ীভাবে রংপুর সরকারি কলেজের নামে করে নেওয়া এবং সেখানে নতুন ভবন নির্মাণের জন্য ইতিপূর্বে একাধিক উদ্যোগ গ্রহণ করা হয়েছে। ভূমি মন্ত্রণালয়কে এ বিষয়ে পদক্ষেপ গ্রহণ করার জন্য আবেদন পাঠানো হয়েছে এবং মন্ত্রণালয়ের সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তাদের একাধিকবার অবহিত করা হয়েছে। এমনকি ছাত্রাবাসের ব্যাপারে দ্রুত পদক্ষেপ গ্রহণ করার জন্য আমি নিজে টিম গঠন করে জেলা প্রশাসকের সঙ্গে দেখা করেছিলাম। জেলা প্রশাসক আশ্বাস প্রদান করেছিলেন দ্রুত ছাত্রাবাসের জমি সংক্রান্ত সমস্যার সমাধানের জন্য প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করবেন। কিন্তু আজ পর্যন্ত এ ব্যাপারে জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে কোনো উদ্যোগ গ্রহণ করা হয়েছে বলে আমার মনে হয় না। তবে এ সমস্যা সমাধাণের জন্য আমরা সর্বোচ্চ চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছি।

আজকালের খবর/আরএম



সর্বশেষ সংবাদ
আরো খবর ⇒
সর্বাধিক পঠিত
সম্পাদকমণ্ডলীর সভাপতি : গোলাম মোস্তফা || সম্পাদক : ফারুক আহমেদ তালুকদার
সম্পাদকীয়, বার্তা ও বাণিজ্যিক কার্যালয় : আজিজ ভবন (৫ম তলা), ৯৩ মতিঝিল বাণিজ্যিক এলাকা, ঢাকা-১০০০।
ফোন : +৮৮-০২-৪৭১১৯৫০৬-৮।  বিজ্ঞাপন- ০১৯৭২৫৭০৪০৫, ০১৭০৯৯৯৭৪৯৯, সাকুলের্শন- ০১৭০৯৯৯৭৪৯৮
ই-মেইল : newsajkalerkhobor@gmail.com, addajkalerkhobor@gmail.com
© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত দৈনিক আজকালের খবর
Web : www.ajkalerkhobor.com, www.eajkalerkhobor.com