শুক্রবার, ১৯ জানুয়ারি, ২০১৮
প্রধান শিক্ষকের চলতি দায়িত্বে ৪৯৭ শিক্ষক
নূরুজ্জামান মামুন
Published : Thursday, 11 January, 2018 at 6:47 PM, Update: 11.01.2018 6:49:02 PM

সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ৪৯৭ জন সহকারী শিক্ষককে প্রধান শিক্ষককের চলতি দায়িত্ব দিয়েছে প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়। গতকাল বৃহস্পতিবার এ সংক্রান্ত অফিস আদেশ জারি করেছে মন্ত্রণালয়। এছাড়া শুন্য পদে চার হাজার ৩২০জন প্রধান শিক্ষক নিয়োগ দিতে সরকারি কর্মকমিশনে (পিএসসি) চাহিদা পাঠিয়েছে মন্ত্রণালয়।

এ ব্যাপারে জানতে চাইলে প্রাথমিক ও গণ শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব ড. এ এফ এম মনজুর কাদির আজকালের খবরকে বলেন, ডিপিইর (প্রাথমিক শিক্ষা অধিদফতর) জেলা ভিত্তিক জ্যেষ্ঠতা তালিকা থেকে এখন পদোন্নতি দেওয়া হচ্ছে। আজ (বৃহস্পতিবার) কুষ্টিয়া ও নেত্রকোনা জেলার ৪৯৭জন জ্যেষ্ঠ সহকারী শিক্ষককে প্রধান শিক্ষককের চলতি দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে। অন্যান্য জেলা থেকে শিক্ষকদের গ্রেডেশনের তালিকা পেলে সেখানেও প্রধান শিক্ষকের শূন্য পদে সহকারী শিক্ষকদের চলতি দায়িত্বে দেওয়া হবে।

তিনি আরও বলেন, সারা দেশে কয়েক হাজার প্রধান শিক্ষকের পদ শুন্য। শিক্ষক নিয়োগ নীতিমালা অনুযায়ী ৩৫ শতাংশ শুন্য পদে পিএসসি নিয়োগ দেয়। গত মাসে পিএসসিতে চার হাজার ৩২০টি শুন্য পদের চাহিদা পাঠানো হয়েছে। ৩৬ তম বিসিএসে উত্তীর্ণদের দ্রুত এসব শুন্যপদে নিয়োগ প্রক্রিয়া শেষ হবে আশা করছি। এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, সহকারী শিক্ষকদের কেউ চলতি দায়িত্ব নিতে চাইলে আবেদন করলেই বাতিল করা হবে। 

মন্ত্রণালয় সূত্র জানায়, আজ বৃহস্পতিবার কুষ্টিয়া জেলার ১৮০ জন ও নেত্রকোনা জেলার ৩১৭জন সহকারী শিক্ষককে প্রধান শিক্ষকের চলতি দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে। আগামী রবিবার তালিকাটি মন্ত্রণালয়ের ওয়েবসাইটে দেওয়া হবে।   

সূত্র আরও জানায়, সারা দেশে বর্তমানে সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় আছে ৬৪ হাজার ৮২০টি। এর মধ্যে প্রায় ২১ হাজার স্কুলে প্রধান শিক্ষক নেই। শিক্ষক নিয়োগ নীতিমালা অনুযায়ী মোট শূন্য পদের ৩৫ শতাংশ সরাসরি এবং ৬৫ শতাংশ পদোন্নতিতে পূরণ হওয়ার কথা। ৬৫ শতাংশ হিসেবে পদোন্নতিযোগ্য পদের সংখ্যা দাঁড়ায় ১৭ হাজারের কিছু বেশি।

গত ২৩ মে প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রী অ্যাডভোকেট মেস্তাফিজুর রহমান ফিজারের সঙ্গে শিক্ষক নেতারা পদোন্নতির বিষয়ে বৈঠক করেন। বৈঠকে জ্যেষ্ঠতা অনুযায়ী সহকারী শিক্ষকদের প্রধান শিক্ষকের চলতি দায়িত্ব দেওয়ার ঘোষণা দেন মন্ত্রী। বৈঠক শেষে প্রাথমিক ও গণশিক্ষামন্ত্রী সাংবাদিকদের বলেন, ‘আমরা চলতি দায়িত্ব দিচ্ছি। পদোন্নতিযোগ্য উল্লিখিত পদে এসব শিক্ষকই পদায়ন পেতেন। ‘প্র্রধান শিক্ষকের অভাবে যেহেতু স্কুলগুলো চলছে না, শিক্ষার মান বিঘ্নিত হচ্ছে এবং স্কুল ব্যবস্থাপনায় সমস্যা হচ্ছে- তাই জ্যেষ্ঠ সহকারী শিক্ষকদের চলতি দায়িত্ব দেওয়া হচ্ছে।’ মন্ত্রীর এ ঘোষণার পরই ঢাকা মহানগরীর ৮৭ জনকে প্রধান শিক্ষক হিসেবে চলতি দায়িত্ব দেওয়া হয়।

জানা গেছে, ২০১৪ সালে প্রধান শিক্ষক পদটি তৃতীয় থেকে দ্বিতীয় শ্রেণিতে উন্নীত করা হয়। এ পদে পিএসসির পদোন্নতি দেওয়ার কথা। বিদ্যমান নিয়োগ বিধিতে প্রধান শিক্ষকের পদটি তৃতীয় শ্রেণি থাকায় নিয়োগবিধি সংশোধন না হওয়া পর্যন্ত পিএসসির মাধ্যমে প্রধান শিক্ষক পদে পদোন্নতি দিতে জটিলতা সৃষ্টি হয়। এছাড়া প্রাথমিক শিক্ষক সমিতির নেতারাই প্রধান শিক্ষক পদে পদোন্নতির বিষয়ে আদালতে মামলা করেছিলেন। ফলে সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষকের অধিকাংশ শূন্য পদ শুন্য ছিল। যদিও ৩৩তম বিসিএস থেকে ৯৯২ জন, ৩৪তম বিসিএস থেকে ৮৯৮ জনকে নিয়োগ দেওয়ার সুপারিশ করে পিএসসি। তবে এই পদ ১২তম গ্রেড হওয়ায় অনেক প্রার্থী যোগদান করেন নি।

আজকালের খবর/আরএম


সর্বশেষ সংবাদ
আরো খবর ⇒
সর্বাধিক পঠিত
সম্পাদকমণ্ডলীর সভাপতি : গোলাম মোস্তফা || সম্পাদক : ফারুক আহমেদ তালুকদার
সম্পাদকীয়, বার্তা ও বাণিজ্যিক কার্যালয় : আজিজ ভবন (৫ম তলা), ৯৩ মতিঝিল বাণিজ্যিক এলাকা, ঢাকা-১০০০।
ফোন : +৮৮-০২-৪৭১১৯৫০৬-৮।  বিজ্ঞাপন- ০১৯৭২৫৭০৪০৫, ০১৭০৯৯৯৭৪৯৯, সাকুলের্শন- ০১৭০৯৯৯৭৪৯৮
ই-মেইল : newsajkalerkhobor@gmail.com, addajkalerkhobor@gmail.com
© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত দৈনিক আজকালের খবর
Web : www.ajkalerkhobor.com, www.eajkalerkhobor.com