শুক্রবার, ১৯ জানুয়ারি, ২০১৮
‘দেশবন্ধু গ্রুপ-চ্যানেল আই প্রকৃতি মেলা’ শনিবার
নিজস্ব প্রতিবেদক
Published : Thursday, 4 January, 2018 at 6:49 PM, Update: 04.01.2018 6:56:04 PM

প্রকৃতি ও জীবন ফাউন্ডেশনের উদ্যোগে ‘দেশবন্ধু গ্রুপ ও চ্যানেল আই প্রকৃতি মেলা’ উপলক্ষে  বৃহস্পতিবার চ্যানেল আই ভবনে সংবাদ সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়।- আজকালের খবর

প্রকৃতি ও জীবন ফাউন্ডেশনের উদ্যোগে ‘দেশবন্ধু গ্রুপ ও চ্যানেল আই প্রকৃতি মেলা’ উপলক্ষে বৃহস্পতিবার চ্যানেল আই ভবনে সংবাদ সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়।- আজকালের খবর

সবুজের চাদরে ঢাকা সোনার বাংলা আজ সবুজ হারিয়ে বিবর্ণপ্রায়। ভবিষ্যতের কথা চিন্তা না করে অপরিণামদর্শী কর্মকাণ্ডের ফলে হারাতে বসেছে বাংলার রূপের ঐতিহ্য। দেশের প্রকৃতিকে সংরক্ষণ করতে, পরিবেশকে বাঁচাতে, প্রকৃতির ভয়াবহ বিপর্যয় রুখতে প্রকৃতি সংরক্ষণের কার্যকরী উদ্যোগ গ্রহণ আজ সময়ের দাবিতে পরিণত হয়েছে। প্রকৃতি বাঁচলে বিশ্বাঁ বাঁচবে। আর বিশ্ব বাঁচলে আমরাও বাঁচবো। তাই প্রকৃতি রক্ষায় গণসচেতনা সৃষ্টির বিকল্প নেই। 

প্রকৃতি ও জীবন ফাউন্ডেশনের উদ্যোগে দেশবন্ধু গ্রুপ ও চ্যানেল আই আয়োজিত ‘প্রকৃতি মেলা’র আগে  বৃহস্পতিবার এক সংবাদ সম্মেলনে এসব কথা বলেন আয়োজকরা। 

সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন ইমপ্রেস গ্রুপ ও চ্যানেল আইয়ের পরিচালক, প্রকৃতি ও জীবন ফাউন্ডেশনের চেয়ারম্যান মুকিত মজুমদার বাবু ও চ্যানেল আই-এর ব্যবস্থাপনা পরিচালক ফরিদুর রেজা সাগর, মেলার প্রধান পৃষ্ঠপোষক প্রতিষ্ঠান দেশবন্ধু গ্রুপের উপ-ব্যবস্থাপনা পরিচালক বিদ্যুৎ কুমার বসু, জিএম হোল্ডিংস লিমিটেডের ব্যবস্থাপনা পরিচালক ও দেশবন্ধু গ্রুপের পরিচালক তাবাসসুম মোস্তফা, নূর ইকো-ব্রিক্সের ব্যবস্থাপনা পরিচালক মো. শাজাহান সিরাজ, ঢাকা বিশ^বিদ্যালয়ের উদ্ভিদ বিজ্ঞান বিভাগের অধ্যাপক মো. জসিমউদ্দিনসহ পরিবেশ ও প্রকৃতি বিশেষজ্ঞগণ।

সংবাদ সম্মেলনে জানানো হয়, প্রকৃতি বিষয়ক সচেতনতা সর্বস্তরে ছড়িয়ে দিতে ও প্রকৃতি রক্ষায় গণসচেতনা সৃষ্টির প্রত্যয় নিয়ে আগামীকাল শনিবার সপ্তম বারের মতো প্রকৃতির মেলা আয়োজন করা হয়েছে।  চ্যানেল আই চত্বরে অনুষ্ঠিত হবে ‘দেশবন্ধু গ্রুপ-চ্যানেল আই প্রকৃতি মেলা’। এবার মেলায় বায়ু দুষণ প্রতিরোধ ও সামুদ্রিক মাছের ব্যবহার বাড়াতে সচেতনতা সৃষ্টির ওপর জোর দেওয়া হবে। 

আবদুল মুকিত মজুমদার বাবু বলেন, আমাদের বসবাসের যে প্রতিকূল পরিস্থিতি তাতে করে আমাদের অনেক কিছু হারিয়ে যাচ্ছে। শুধু যে গাছপালা, পাখি, নদ-নদী, প্রাণী এরাই শুধু বিলুপ্ত হচ্ছে তা নয়, আমাদের চিরন্তন বাংলার ঐতিহ্য ছিল সেগুলোও হারিয়ে যাচ্ছে। আমাদের পরিবেশের নানান উপাদান যেমন, গাছপালা, পশুপাখি, নদ-নদী, সমুদ্র, পাহাড় সবকিছুরই সংরক্ষণের প্রয়োজন আছে। এ জন্য ভালোবাসার প্রয়োজন। অধিক জনসংখ্যার চাপ ও অসচেতনতায় এ ব্যাপারে আমরা উদাসীন থেকেই যাচ্ছি। কিন্তু প্রকৃতি ঠিক না থাকলে  শেষ পর্যন্ত আমরাও বাঁচতে পারব না। আমাদের পরিবেশ যখনই বিপদগ্রস্ত অবস্থায় চলে যাবে, তখন আমরা নিজেরাও বিপজ্জনক অবস্থায় চলে যাব। এ ব্যাপারে সচেনতা বাড়াতে আমরা যেমন ‘প্রকৃতি ও জীবন’ নামে একটি অনুষ্ঠান করছি একই সঙ্গে প্রকৃতি মেলা করে এই সচেতনতাটা  আরও জোরদার  করার চেষ্টা করা হচ্ছে।

আবদুল মুকিত মজুমদার বাবু আরও বলেন, এ মেলা সব শ্রেণীর দর্শকদের জন্যই উন্মুক্ত থাকছে। সাধারণ দর্শকের পাশাপাশি প্রকৃতিপ্রেমীরাও মেলায় আসবেন আশা করছি। আমরা চাই এই মেলায় সবাই আসুক। আমাদের প্রকৃতির নান্দনিক সৌন্দর্য ও বৈচিত্র্য সম্পর্কে জানুক। সবার সচেতনতাই আমাদের প্রকৃতি ও পরিবেশকে রক্ষা করতে পারে। বিভিন্ন দূতাবাসের লোকজন এবং বিদেশিরাও এই মেলায় আসবেন। বিভিন্ন দেশে যেসব প্রবাসী বাঙালি রয়েছেন, তাদের নিরাশ হবার কোনো কারণ নেই। চ্যানেল আই এই মেলা সরাসরি সম্প্রচার করবে। 

ফরিদুর রেজা সাগর বলেন, দেশে মেলার অভাব নেই। তবে প্রকৃতি মেলা একটু ভিন্নধর্মী। আমাদের সঙ্গে প্রকৃতির যে সম্পর্ক রয়েছে সেটিই প্রতিবছর মেলায় তুলে ধরতে চাই। কারণ আমরা যারা ঢাকা শহরে জীবন-যাপন করি তারা প্রকৃতি থেকে অনেক দূরে থাকি। তাই ঢাকা শহরে বেড়ে ওঠা নতুন প্রজন্মকে প্রকৃতির মধ্যে রাখার একটি প্রয়াসে সারা দিনব্যাপি এই প্রকৃতি মেলা।

দেশবন্ধু গ্রুপের উপ-ব্যবস্থাপনা পরিচালক বিদ্যুৎ কুমার বসু বলেন, প্রকৃতির মালিক আমরা নই। এর মালিক একজন আছে। আমরা এর ব্যবহার করছি মাত্র। ফলে আমাদের প্রকৃতিকে সাজিয়ে রাখতে হবে। কারণ প্রকৃতি বাঁচলে আমরা বাঁচবো। এই বাঁচানোর জন্য প্রথমে কেউ শুরু করে। পরে অন্যরা এসে যুক্ত হয়। তেমনি চ্যানেল আই শুরু করেছে, এখন দেশবন্ধু গ্রুপ তাদের সঙ্গে যুক্ত হয়েছে। 

তাবাসসুম মোস্তফা বলেন, ইট-কংক্রিটের নগরীতে সচেতনতার অভাবে বিপন্ন হয়ে উঠেছে প্রাণ ও প্রকৃতি। প্রকৃতি বাঁচাতে ও মানুষের মধ্যে সচেতনতা বাড়াতে প্রকৃতি মেলার আয়োজনকে আমি সমর্থন করছি। আমি নিজেই জিএম হোল্ডিংস নামে রিয়েল এসেস্ট কোম্পানি থেকে এই মেলায় অংশ নিয়েছি। 

তিনি বলেন, আমরা সবাই যেনো আমাদের নিজেদের কাজগুলো সবুজময় চিন্তা করে করি। কারণ আমাদের দেশটি খুবই ছোট। এটাকে সুন্দরভাবে সাজিয়ে বসবাসের উপযোগী করে রাখতে হবে। এ কাজে দেশের সবাইকে এগিয়ে আসতে হবে। 

সংবাদ সম্মেলন শেষে বর্ণাঢ্যে র‌্যালি তেজগাঁওয়ের বিভিন্ন সড়ক প্রদক্ষিণ করে।- আজকালের খবর

সংবাদ সম্মেলন শেষে বর্ণাঢ্যে র‌্যালি তেজগাঁওয়ের বিভিন্ন সড়ক প্রদক্ষিণ করে।- আজকালের খবর

মো. শাজাহান সিরাজ বলেন, এটা আসলে মেলা নয়, প্রকৃতিকে বাঁচাতে গণসচেতনতার আন্দোলন। এই আন্দোলনে সবার অংশগ্রহণ থাকা দরকার। তিনি বলেন, যে কোনো মূল্যে প্রকৃতিকে বাঁচিয়ে রাখতে হবে। এ ধরনের আয়োজনের পর থেকে তা শুরু হয়েছে। তিনি আরও বলেন, পরিবেশ সম্মতভাবে তৈরি হচ্ছে ইকো ব্রিক্সস। আগে যেখানে মাত্র ৪০টি ছিল বর্তমানে তা ১২৪টিতে পৌঁছেছে। এটা অবশ্যই ভালো দিক বলে তিনি মন্তব্য করেন।  

সংবাদ সম্মেলনে জানানো হয়, পরিবেশ ও প্রকৃতিবিষয়ক ব্যতিক্রমী সপ্তম বারের প্রকৃতি মেলায় প্রকৃতির সুর ও সঙ্গীত ভিন্নমাত্রা নিয়ে ধরা দেবে। থাকবে অভিনব ক্যারেক্টার শো। প্রাণপ্রকৃতি নিয়ে থাকবে ছবি প্রদর্শনী, শিশুদের চিত্রাঙ্কন প্রতিযোগিতা, মূকাভিনয়, গম্ভীরা, জারিগান ইত্যাদি। মেলা প্রাঙ্গণে আরও থাকবে সামুদ্রিক মাছের স্টল, জীবন্ত প্রজাপতি ঘর, পাখি নিয়ে তথ্য-উপাত্ত। বিভিন্ন প্রজাতির গাছের পসরা সাজিয়ে বসবে নার্সারিগুলো। প্রকৃতি নিয়ে গ্রামীণ ঐতিহ্যের গানে চলবে খ্যাতিমান শিল্পীদের প্রকৃতিবন্দনা। থাকবে গানের সঙ্গে নানা সাজের নাচের আয়োজনও। পরিবেশ ও প্রকৃতিবিষয়ক সচেতনতা সৃষ্টিতে মেলায় অংশগ্রহণ করবেন প্রকৃতিবিদ, প্রকৃতিপ্রেমিসহ দেশের গণ্যমাণ্য ব্যক্তিবর্গ। চারদিকে ফলদ, বনজ ও ওষুধি গাছে মেলাপ্রাঙ্গণ হয়ে উঠবে সবুজে মোড়ানো একখণ্ড বাগান। 

আয়োজকরা আশা করছেন, পরিবেশ ও প্রকৃতিবিষয়ক সচেতনতা সৃষ্টিতে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখবে এ মেলা। প্রকৃতি রক্ষায় সবাইকে এগিয়ে আসার আহ্বান জানান তারা। 

সংবাদ সম্মেলনে প্রকৃতি ও জীবন ফাউন্ডেশনের বিগত বছরগুলির কার্যক্রম ও বিভিন্ন অর্জনের ভিডিওচিত্র দেখানো হয়। সংবাদ সম্মেলন শেষে প্রকৃতিবিষয়ক সচেতনতা সৃষ্টিতে শিশুদের নিয়ে প্রকৃতিপ্রেমীদের এক বর্ণাঢ্য শোভাযাত্রা তেজগাঁওয়ের বিভিন্ন সড়ক প্রদক্ষিণ করে। চ্যানেল আই চত্বর থেকে শুরু হয় বর্ণাঢ্য শোভাযাত্রা। প্রকৃতির নানা অনুসঙ্গ ও শিশুদের স্বতস্ফূর্ত অংশগ্রহণে র‌্যালি হয়ে ওঠে উপভোগ্য। 

‘সুন্দর প্রকৃতিতে গড়ি সুস্থ জীবন’-এই প্রতিপাদ্যকে ধারণ করে প্রকৃতি ও জীবন ফাউন্ডেশন ২০১২ সাল থেকে চ্যানেল আই প্রাঙ্গণে এ মেলার আয়োজন করে আসছে। 

আজকালের খবর/এসএ




সর্বশেষ সংবাদ
আরো খবর ⇒
সর্বাধিক পঠিত
সম্পাদকমণ্ডলীর সভাপতি : গোলাম মোস্তফা || সম্পাদক : ফারুক আহমেদ তালুকদার
সম্পাদকীয়, বার্তা ও বাণিজ্যিক কার্যালয় : আজিজ ভবন (৫ম তলা), ৯৩ মতিঝিল বাণিজ্যিক এলাকা, ঢাকা-১০০০।
ফোন : +৮৮-০২-৪৭১১৯৫০৬-৮।  বিজ্ঞাপন- ০১৯৭২৫৭০৪০৫, ০১৭০৯৯৯৭৪৯৯, সাকুলের্শন- ০১৭০৯৯৯৭৪৯৮
ই-মেইল : newsajkalerkhobor@gmail.com, addajkalerkhobor@gmail.com
© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত দৈনিক আজকালের খবর
Web : www.ajkalerkhobor.com, www.eajkalerkhobor.com