শনিবার, ১৮ নভেম্বর, ২০১৭
ভারতে কোনো ইসলামি ব্যাংক হবে না
অনলাইন ডেস্ক
Published : Tuesday, 14 November, 2017 at 9:48 AM, Update: 14.11.2017 9:51:11 AM

ভারতীয় কেন্দ্রীয় ব্যাংক ‘রিজার্ভ ব্যাংক অব ইন্ডিয়া’ (আরবিআই) দেশটিতে ইসলামি ব্যাংকিং প্রবর্তনের প্রস্তাবে সম্মত না হওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে। এক প্রশ্নের জবাবে কেন্দ্রীয় ব্যাংকটি জানিয়েছে, ব্যাংকিং ও আর্থিক পরিষেবায় সব নাগরিকের ‘বৃহত্তর ও সমান সুযোগের’ বিষয়টি বিবেচনা করার পর এই সিদ্ধান্ত গ্রহণ করা হয়েছে। সুদহীন নীতিমালার ওপর ভিত্তি করে ইসলামি বা শরিয়াহ ব্যাংকিং ব্যবস্থা প্রতিষ্ঠিত হয়ে থাকে।

এনডিটিভি’র এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, আরবিআই এবং ভারত সরকার ভারতে ইসলামি ব্যাংকিং প্রবর্তনের বিষয়টি পরীক্ষা করে দেখেছে। পিটিআইয়ের এক সাংবাদিকদের দাখিল করা আরটিআই আবেদনের জবাবে কেন্দ্রীয় ব্যাংক জানায়, ব্যাংকিং ও আর্থিক পরিষেবায় সব নাগরিকের বৃহত্তর ও সমান সুযোগ প্রাপ্তির বিষয় বিবেচনা করার পর ইসলামি ব্যাংকিং চালুর প্রস্তাব আর এগিয়ে না নেওয়ার সিদ্ধান্ত হয়েছে।

আরবিআইকে জিজ্ঞাসা করা হয়েছিল, ভারতে ইসলামি বা ‘সুদমুক্ত’ ব্যাংকিং প্রবর্তনে কী কী পদক্ষেপ গ্রহণ করা হয়েছে। প্রধানমন্ত্রী ২০১৪ সালের ২৮ আগস্ট ধন যোজনা নামে দেশের সব বাড়িতে ব্যাপকভিত্তিক আর্থিকব্যবস্থা প্রবর্তন করার জন্য জাতীয় মিশন চালুর ঘোষণা দিয়েছিলেন। ২০০৮ সালের শেষ দিকে ‘ফিন্যান্সিয়াল সেক্টর রিফর্মস’ নামে একটি কমিটি গঠন করা হয়। এর প্রধান করা হয় আরবিআই গভর্নর রঘুরাম রাজনকে। এ কমিটিকে দেশে সুদমুক্ত ব্যাংকব্যবস্থা প্রতিষ্ঠার বিষয়টি গুরুত্ব দিয়ে খতিয়ে দেখতে বলা হয়।

কমিটি বলেছিল, সুদের সম্পৃক্ততা থাকার কারণে অনেক ধর্মে সুদযুক্ত আর্থিক ব্যবস্থাদির ব্যবহার নিষিদ্ধ। সুদমুক্ত ব্যবস্থা না থাকায় অর্থনৈতিকভাবে পশ্চাদপদ অনেক লোক তাদের ধর্মবিশ্বাসের কারণে ব্যাংকিং পরিষেবা ও পণ্য সংগ্রহ করে না।

পরে কেন্দ্রীয় সরকার ভারতে সুদমুক্ত ব্যাংকব্যবস্থা প্রবর্তনের আইনগত, কারিগরি ও নিয়ন্ত্রণ ইস্যুগুলো পরীক্ষা করে দেখতে আরবিআইয়ে একটি কমিটি গঠন করে। কমিটি তাদের রিপোর্ট সরকারের কাছে পেশ করে। গত বছরের ফেব্রুয়ারিতে আরবিআই অর্থ মন্ত্রণালয়ে প্রতিবেদন পাঠায়। এতে প্রচলিত ব্যাংকগুলোতেই ধীরে ধীরে ‘ইসলামি ইউন্ডো’ খোলার জন্য সুপারিশ পেশ করা করা হয়।

কমিটি জানায়, ইসলামি অর্থব্যবস্থা পরিচালনায় নানা ধরনের জটিলতা ও তদারকি চ্যালেঞ্জ রয়েছে। আবার ভারতীয় ব্যাংকব্যবস্থায় এ ধরনের কোনো অভিজ্ঞতা নেই। এ প্রেক্ষাপটে ভারতে ধীরে ধীরে ইসলামি ব্যাংকব্যবস্থা চালু করা যেতে পারে।

মন্ত্রণালয়ে পাঠানো এক চিঠিতে কমিটি জানায়, সরকারের অনুমোদন প্রাপ্তি সাপেক্ষে শুরুতে প্রচলিত ব্যাংকের ইসলামি উইন্ডোতে প্রচলিত ব্যাংকিংয়ের সাথে সামঞ্জস্যপূর্ণ কিছু পণ্য প্রবর্তন করা যেতে পারে।

চিঠিতে আরো বলা হয়েছিল, প্রবর্তনের আগে ইসলামি ব্যাংকব্যবস্থা নিয়ে আরো যাচাই-বাছাই করার প্রয়োজন রয়েছে।

আজকালের খবর/এসএ



সর্বশেষ সংবাদ
আরো খবর ⇒
সর্বাধিক পঠিত
সম্পাদকমণ্ডলীর সভাপতি : গোলাম মোস্তফা || সম্পাদক : ফারুক আহমেদ তালুকদার
সম্পাদকীয়, বার্তা ও বাণিজ্যিক কার্যালয় : আজিজ ভবন (৫ম তলা), ৯৩ মতিঝিল বাণিজ্যিক এলাকা, ঢাকা-১০০০।
ফোন : +৮৮-০২-৪৭১১৯৫০৬-৮। বিজ্ঞাপন : +৮৮০১৭৮৭-৬৮৪৪২৪, ০১৭৯৫৫৫৬৬১৪, সার্কুলেশন : +৮৮০১৭৮৯-১১৮৮১২
ই-মেইল : newsajkalerkhobor@gmail.com, addajkalerkhobor@gmail.com
© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত দৈনিক আজকালের খবর
Web : www.ajkalerkhobor.com, www.eajkalerkhobor.com