বৃহস্পতিবার, ১৭ আগস্ট, ২০১৭
ভারত থেকে ৪০ হাজার রোহিঙ্গা সরাতে ঢাকার সঙ্গে দিল্লির আলোচনা
নিউজ ডেস্ক
Published : Saturday, 12 August, 2017 at 7:27 PM, Update: 12.08.2017 7:31:51 PM

ভারতে অবৈধভাবে বসবাসরত প্রায় ৪০ হাজার রোহিঙ্গা মুসলিমকে সরিয়ে দিতে বাংলাদেশ ও মিয়ানমারের সাথে আলোচনা করছে ভারত। এক সরকারি মুখপাত্র শুক্রবার এ তথ্য জানিয়েছেন। এ উদ্দেশ্যে টাস্ক ফোর্স গঠন করার জন্য রাজ্য সরকারগুলোকে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে বলেও মুখপাত্র জানান। সংবাদসংস্থা রয়টার্স এ খবর দিয়েছে।

বৌদ্ধ প্রাধান্যবিশিষ্ট মিয়ানমার থেকে ১৯৯০-এর দশকের প্রথম থেকে লাখ লাখ রোহিঙ্গা মুসলিম প্রতিবেশী বাংলাদেশে পালিয়ে আসে। তাদের অনেকে সীমান্ত অতিক্রম করে হিন্দু সংখ্যাগরিষ্ঠ ভারতে পাড়ি জমায়।

নয়া দিল্লি বলছে, জাতিসঙ্ঘ উদ্বাস্তু সংস্থার নিবন্ধিত অবস্থায় প্রায় ১৪ হাজার রোহিঙ্গা ভারতে বাস করছে। বাকিরা অবৈধ। তাই তাদেরকে ফেরত পাঠানো হবে। ভারত উদ্বাস্তুবিষয়ক জাতিসঙ্ঘ কনভেনশনে সই করেনি। এ ব্যাপারে তাদের কোনো জাতীয় আইনও নেই।

স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র কে এস ধাতওয়ালিয়া বলেন, বাংলাদেশ ও মিয়ানমার উভয় দেশের সাথে ক‚টনৈতিক পর্যায়ে এসব বিষয় নিয়ে আলোচনা হয়েছে। যথাযথ সময়ে আরো ব্যাখ্যা প্রদান করা হবে।

ভারতের স্বরাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী কিরেন রিজুজু বুধবার পার্লামেন্টে বলেন, অবৈধভাবে বসবাসরত বিদেশী নাগরিকদের চিহ্নিত ও বহিষ্কার করার জন্য রাজ্য সরকারগুলোকে জেলা পর্যায়ে টাস্ক ফোর্স গঠন করার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। একটি অনুষ্ঠানে যোগ দিতে রিজিজু সম্প্রতি মিয়ানমার সফর করেছেন। তবে তিনি তখন রোহিঙ্গা ইস্যু নিয়ে আলোচনা করেছেন কিনা তা স্পষ্ট নয়। এ ব্যাপারে মন্তব্য করার জন্য মিয়ানমারের কর্মকর্তাদের পাওয়া যায়নি।

অ্যামনেস্টি ইন্টারন্যাশনাল জানিয়েছে, রোহিঙ্গাদের বহিষ্কার ও পরিত্যাগ করা হবে ‘মানবিকবোধহীন’ কাজ। জাতিসংঘ উদ্বাস্তুবিষয়ক ভারতীয় অফিস জানিয়েছে, নয়া দিল্লির রোহিঙ্গাদের বহিষ্কারের বিষয়টি নিয়ে তারা খোঁজখবর নিচ্ছেন। দরিদ্র ভারতে সাধারণভাবে রোহিঙ্গারা গ্রহণীয় নয়। জাতীয়তাবাদী ও ইসলামবিরোধী ভাবাবেগও তাদের প্রতি বৈরিতা সৃষ্টির জন্য দায়ী।

গত বছরের অক্টোবরে মিয়ানমার নিরাপত্তা বাহিনীর সীমান্ত চৌকিতে কথিত সন্ত্রাসী হামলার পর থেকে সামরিক অভিযান শুরু হলে ৭৫ হাজারের বেশি রোহিঙ্গা বাংলাদেশে পালিয়ে যায়। বাংলাদেশের এক সিনিয়র কর্মকর্তা বলেছেন, সঙ্কটটি সুরাহার সহায়তা করছে নয়া দিল্লি। ভারতের জম্মু, উত্তর প্রদেশ, হরিয়ানা, দিল্লি, রাজস্থানের মতো এলাকায় রোহিঙ্গারা বাস করে।


আজকালের খবর/এসএ



সর্বশেষ সংবাদ
আরো খবর ⇒
সর্বাধিক পঠিত
সম্পাদকমণ্ডলীর সভাপতি : গোলাম মোস্তফা || সম্পাদক : ফারুক আহমেদ তালুকদার
সম্পাদকীয়, বার্তা ও বাণিজ্যিক কার্যালয় : সুমনা গণি ট্রেড সেন্টার, (৪ তলা) প্লট-২, পান্থপথ (সার্ক ফোয়ারা মোড়), ঢাকা।
ফোন : ০২-৫৫০১৩২১৪ ফ্যাক্স : ০২-৫৫০১৩২১৫, বিজ্ঞাপন : ০১৭৮৭৬৮৪৪২৪, সার্কুলেশন : ০১৭৮৯১১৮৮১২
ই-মেইল : newsajkalerkhobor@gmail.com, addajkalerkhobor@gmail.com
© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত দৈনিক আজকালের খবর
Web : www.ajkalerkhoborbd.com, www.eajkalerkhobor.com