শনিবার, ১৬ ডিসেম্বর, ২০১৭
হিরোশিমা-নাগাসাকি, দুটো পরমাণু হামলাতেও অক্ষত ছিলেন ইনি!
অনলাইন ডেস্ক
Published : Wednesday, 9 August, 2017 at 7:21 PM, Update: 09.08.2017 7:26:21 PM

১৯৪৫ সালের ৬ ও ৯ আগস্ট। তখন সময় দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের। দু’দিনে দু’টি পরমাণু বোমা ফেলেছিল আমেরিকা। জাপানের দুই শহর হিরোসিমা ও নাগাসাকিতে। মারা যান দেড় লাখের বেশি মানুষ। শারীরিক প্রতিবন্ধী হয়ে যান আরও লক্ষাধিক। জিনগত রোগে আক্রান্ত হন জাপানের অধিকাংশ নাগরিক। দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের বীভৎসতা ছিল এমনই।

৬ ও ৯ আগস্ট একইসঙ্গে হিরোসিমা ও নাগাসাকিতে উপস্থিত ছিলেন সুতোমু ইমাগুচি। কিন্তু, ভাগ্যের জোরে দুই পরমাণু হামলা থেকেই বেঁচে যান তিনি। ৯তিন বছরের ইমাগুচিকে পরমাণু হামলার একমাত্র জীবিত ব্যক্তি বলে ঘোষণা করেছিল জাপান সরকার। যদিও ২০১০ সালের জানুয়ারি নাগাসাকিতেই দেহত্যাগ করেন সুতমু ইমাগুচি।

রবিবার হিরোসিমা দিবস ও  নাগাসাকি দিবসে তবু উঠে আসে তার প্রসঙ্গ।

১৯৪৫ সালের ৬ আগস্ট হিরোশিমায় ‘লিটল বয়’ নামের পরমাণু বোমা ফেলেছিল মার্কিন সেনা। মুহূর্তেই নরকে পরিণত হয়ে যায় শহরটি। প্রাণ যায় কমপক্ষে ৮০ হাজারের। ওইদিনই হিরোসিমা থেকে মাত্র তিন কিলোমিটার দূরে ছিলেন ইমাগুচি। কিন্তু, বরাতজোরে বেঁচে যান তিনি। আতঙ্কে হিরোশিমা ছেড়ে নাগাসাকির উদ্দেশে রওনা দেন তিনি।

এই ঘটনার তিন দিন পর নাগাসাকি শহরেও পরমাণু হামলা হয়। ‘ফ্যাট বয়’ নামের এক পরমাণু বোমা ফেলা হয় নাগাসাকি শহরে। কিন্তু, এবারও মাত্র তিন কিলোমিটার দূরে থাকা সত্ত্বেও আশ্চর্য ভাবে প্রাণে বেঁচে যান ইমাগুচি।- টাইমস অব ইন্ডিয়া

আজকালের খবর/এসএ



সর্বশেষ সংবাদ
আরো খবর ⇒
সর্বাধিক পঠিত
সম্পাদকমণ্ডলীর সভাপতি : গোলাম মোস্তফা || সম্পাদক : ফারুক আহমেদ তালুকদার
সম্পাদকীয়, বার্তা ও বাণিজ্যিক কার্যালয় : আজিজ ভবন (৫ম তলা), ৯৩ মতিঝিল বাণিজ্যিক এলাকা, ঢাকা-১০০০।
ফোন : +৮৮-০২-৪৭১১৯৫০৬-৮। বিজ্ঞাপন : +৮৮০১৭৮৭-৬৮৪৪২৪, ০১৭৯৫৫৫৬৬১৪, সার্কুলেশন : +৮৮০১৭৮৯-১১৮৮১২
ই-মেইল : newsajkalerkhobor@gmail.com, addajkalerkhobor@gmail.com
© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত দৈনিক আজকালের খবর
Web : www.ajkalerkhobor.com, www.eajkalerkhobor.com