শনিবার, ১৬ ডিসেম্বর, ২০১৭
পিরোজপুর-১ আসনে বিএনপির শক্ত প্রার্থী ব্যারিস্টার সরোয়ার
মোজাম্মেল হক তুহিন
Published : Wednesday, 2 August, 2017 at 8:28 PM, Update: 03.08.2017 11:36:05 AM

মেজর (অব.) ব্যারিস্টার এম সরোয়ার হোসেন

মেজর (অব.) ব্যারিস্টার এম সরোয়ার হোসেন

পিরোজপুর জেলা বিএনপির সদস্য মেজর (অব.) ব্যারিস্টার এম সরোয়ার হোসেন একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে বিএনপির মনোনয়ন পেতে পিরোজপুরের সদর, নাজিরপুর ও নেছারাবাদে গণসংযোগ চালিয়ে যাচ্ছেন। নির্বাচনের সার্বিক প্রস্তুতি নিয়ে আজকালের খবরের সঙ্গে কথা বলেন তিনি।

নাম পরিবর্তন হওয়া জিয়ানগর উপজেলার পত্তাশী গ্রামে জন্মগ্রহণ করেন তিনি। পিতা আব্দুল হাকিম হাওলাদার সামাজিক কর্মকাণ্ডে জড়িত। ব্যারিস্টার এম সরোয়ার চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় থেকে ১৯৮৮ সালে স্নাতক ডিগ্রি অর্জন করেন। এরপর ১৯৯৭ সালে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে আন্তর্জাতিক সম্পর্ক বিভাগ থেকে স্নাতকোত্তর ডিগ্রি অর্জন করেন। পরবর্তীতে ২০০৬ সালে লন্ডন বিশ্ববিদ্যালয় থেকে এলএলবি ও ২০০৯ সালে লন্ডনের সিটি ইউনিভার্সিটি থেকে পিজিডিএল অর্জন করেন। একই বছর লন্ডনের লিংকনস ইন থেকে বার-এট ল’ ডিগ্রি পান। বর্তমানে তিনি সুপ্রিম কোর্টে আইন পেশায় নিয়োজিত এবং সুপ্রিম কোর্ট জাতীয়তাবাদী আইনজীবী ফোরামের সদস্য।

এর আগে কর্মজীবনে তিনি ১৯৮৮ সালে বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর কমিশনপ্রাপ্ত হন। ২০ বছর সফলতার সঙ্গে দায়িত্ব পালনের পর ২০০৭ সালে মেজর অবস্থায় স্বেচ্ছায় অবসর গ্রহণ করেন।

ব্যারিসটার এম সরোয়ার ২০১০ সালে আনুষ্ঠানিকভাবে বিএনপিতে যোগদান করেন। আজকালের খবরকে তিনি বলেন, দেশপ্রেমের মন্ত্রে উজ্জীবিত হয়ে মানুষের জন্য সেবার মনোবাসনা থেকেই আমার রাজনীতিতে আসা।

বিএনপির রাজনীতিতে যোগ দেওয়ার বিষয়ে তিনি বলেন, শহীদ রাষ্ট্রপতি জিয়াউর রহমানের আদর্শে একটি সুন্দর বাংলাদেশ বিনির্মাণের জন্যই জাতীয়তাবাদী রাজনীতিতে যোগ দেই।

তিনি আরও বলেন, দেশের স্বাধীনতা-সার্বভৌমত্ব রক্ষা, সুশাসন, ন্যায় বিচার নিশ্চিত করা ও দুর্নীতিমুক্ত বাংলাদেশ গড়তে জিয়াউর রহমান প্রবর্তিত ১৯ দফার মাধ্যমেই বাস্তবায়ন সম্ভব।

ব্যারিস্টার এম সরোয়ার বলেন, সেনাবাহিনীতে আরও কমপক্ষে ১৫ বছর চাকরি করতে পারতাম। পদোন্নতিও পেতাম কিন্তু মানুষের জন্য বিশেষ করে এলাকাবাসীর জন্য কিছু করার তাগিদেই চাকরি ছেড়ে রাজনীতিতে আসা। সেজন্যই একাদশ নির্বাচনে বিএনপির মনোনয়ন চাইছি।

তিনি বলেন, রাজনীতিতে যোগ দেওয়ার পর থেকেই আমি এলাকার নেতাকর্মীসহ সাধারণ মানুষের জন্য কাজ করার চেষ্টা করছি। বিভিন্ন রাজনৈতিক ও সামাজিক অনুষ্ঠানে যোগদান করছি। স্থানীয় বিএনপির নেতাকর্মীসহ অসহায় মানুষদের বিনা পয়সায় আইনি সহায়তা দিয়ে যাচ্ছি। দলের চেয়ারপারসন ও সিনিয়র ভাইস চেয়ারম্যানের মামলার লিগ্যাল টিমের সদস্য হিসেবেও কাজ করছি। কর্মজীবনের অভিজ্ঞতা থেকে বিএনপি চেয়ারপারসনের নিরাপত্তা রক্ষায় নিয়োজিত সিএসএফের একজন সদস্য হিসেবেও দায়িত্ব পালন করছি।

নির্বাচনের মনোনয়নের বিষয়ে তিনি বলেন, আমার কর্র্ম ও পেশা জীবনের অভিজ্ঞতা মূল্যায়ন করে দল আমাকে বিএনপির প্রার্থী হিসেবে মনোনয়ন দিবে এমন প্রত্যাশা করছি। তিনি বলেন, দলের এই দঃসময়ে তৃণমূলের নেতাকর্মীরা যেকোনো প্রয়োজনে আমাকে ডাকলে তাদের সহায়তা করে যাচ্ছি। এমনকি আমার ব্যক্তিগত মোবাইল নম্বর পোস্টার-লিফলেটে দিয়ে দিচ্ছি। যাতে করে তারা আমাকে যেকোনো প্রয়োজনে ফোন করতে পারে।

তিনি আরও বলেন, বিএনপির রাজনীতি করার কারণে বর্তমানে আমার নামে বিভিন্ন হয়রানিমূলক নয়টি মিথ্যা মামলা চলমান রয়েছে। ২০১৩ সালে গ্রেফতার হয়ে প্রায় পাঁচ মাস কারাগারে আটক ছিলাম। তারপরও প্রতিটি রাজনৈতিক কর্মসূচিতে সক্রিয়ভাবে অংশ নিচ্ছি। এসব বিবেচনায় দল আমাকে জনগণের জন্য কাজ করতে সুযোগ করে দিবে।

ব্যারিস্টার এম সরোয়ার বলেন, আগামী নির্বাচনে বিএনপির মনোনয়ন পেলে আমার নির্বাচনী অঙ্গীকার থাকবে-আমার নির্বাচনী এলাকাকে সন্ত্রাস ও মাদকমুক্ত হিসেব গড়ে তোলা। দলের নেতাকর্মী, সমাজের বিশিষ্ট নাগরিকদের সঙ্গে নিয়ে দুর্নীতি প্রতিরোধে সামাজিক আন্দোলন গড়ে তোলা। এলাকার সার্বিক উন্নয়ন, সবার জন্য শিক্ষা ও চিকিৎসা নিশ্চিত করে জ্ঞানভিত্তিক সমাজ নির্মাণ করা।

দেশের বর্তমান রাজনীতি নিয়ে তিনি বলেন, নিকৃষ্ট দুঃশাসন চলছে দেশে। জাতীয় সংসদের বিশিরভাগ প্রতিনিধি বিনাভোটে নির্বাচিত হওয়ায় তাদের মধ্যে জবাবদিহিতা নেই। এজন্য দেশে আইনের শাসন নেই। গুম-হত্যা বেড়ে গেছে। নারী ও শিশু নির্যাতন ভয়াবহ আকার ধারন করছে। বিরোধী মতকে মিথ্যা মামলায় দমিয়ে রাখার চেষ্টা চলছে। অন্যদিকে দেশের আর্থিক খাতকে লুটপাটের মাধ্যমে ধ্বংস করে দেওয়া হয়েছে।

তিনি বলেন, দেশের জনগণ এই অবস্থা থেকে মুক্তি চায়। তাই আমি বলবÑ নাগরিক হিসেবে তাদের মৌলিক অধিকার আদায়ে আরও সোচ্চার হতে হবে। দেশের জনপ্রিয় দল হিসেবে বিএনপিকেও গণতন্ত্র পুনরুদ্ধারের আন্দোলন চালিয়ে যেতে হবে। আগামী নির্বাচনে দলের ত্যাগী, নিবেদিত ও পরিচ্ছন্ন ইমেজের প্রার্থীকে মনোনয়ন দিতে হবে। এক্ষেত্রে দল কোনো ভুল সিদ্ধান্ত নিলে তার খেসারত দলকেই নিতে হবে। একইসঙ্গে জনগণের প্রতি আমার আহ্বান থাকবে- নিজের পছন্দের জনপ্রতিনিধি নির্বাচিত করার জন্য নির্ভয়ে ভোট কেন্দ্রে যান। কোনো বাধা-বিপত্তি আসলে প্রতিবাদ করুন।

আজকালের খবর/এসএ




সর্বশেষ সংবাদ
আরো খবর ⇒
সর্বাধিক পঠিত
সম্পাদকমণ্ডলীর সভাপতি : গোলাম মোস্তফা || সম্পাদক : ফারুক আহমেদ তালুকদার
সম্পাদকীয়, বার্তা ও বাণিজ্যিক কার্যালয় : আজিজ ভবন (৫ম তলা), ৯৩ মতিঝিল বাণিজ্যিক এলাকা, ঢাকা-১০০০।
ফোন : +৮৮-০২-৪৭১১৯৫০৬-৮। বিজ্ঞাপন : +৮৮০১৭৮৭-৬৮৪৪২৪, ০১৭৯৫৫৫৬৬১৪, সার্কুলেশন : +৮৮০১৭৮৯-১১৮৮১২
ই-মেইল : newsajkalerkhobor@gmail.com, addajkalerkhobor@gmail.com
© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত দৈনিক আজকালের খবর
Web : www.ajkalerkhobor.com, www.eajkalerkhobor.com