শনিবার, ১৬ ডিসেম্বর, ২০১৭
গাইবান্ধা-৪ আসনে বিএনপির প্রার্থী হতে চান আমিনুল ইসলাম
মোজাম্মেল হক তুহিন
Published : Sunday, 30 July, 2017 at 12:43 PM

আমিনুল ইসলাম

আমিনুল ইসলাম

বিএনপির জাতীয় নির্বাহী কমিটির সদস্য আমিনুল ইসলাম গাইবান্ধা-৪ (গোবিন্দগঞ্জ) আসনে বিএনপির মনোনয়ন প্রত্যাশী। রাজনৈতিক পরিবারের সন্তান আমিনুল ইসলামের বাবা প্রয়াত ওসমান আলী মণ্ডল (ওসমান মাস্টার) গোবিন্দগঞ্জ থানা বিএনপির প্রতিষ্ঠাকালীন সদস্য ও সাবেক সহ-সভাপতি। তার মামা প্রয়াত অ্যাডভোকেট সিরাজুল ইসলাম বুদু মিয়া গাইবান্ধার গোবিন্দগঞ্জের এমএলও এবং এমপি ছিলেন।

১৯৮৩ সালে রাজশাহী কলেজে পড়ার সময় স্বৈরাচার এরশাদবিরোধী আন্দোলনে ছাত্রদলের মিছিলে সক্রিয়ভাবে অংশগ্রহণ করেন আমিনুল ইসলাম। রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তির পর ছাত্রদলের রাজনীতিতে সক্রিয় অংশগ্রহণ ছিল তার। পরবর্তীতে ১৯৯১ সালে রাবির শের-ই বাংলা হল শাখার সহ-সভাপতি নির্বাচিত হন। ১৯৯৪ সালে টিচার্স ট্রেনিং কলেজ ছাত্র সংসদ নির্বাচনে সাহিত্য সম্পাদক নির্বাচিত হন। ১৯৯৬ সালে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের আইইআর শাখা ছাত্রদলের সহ-সভাপতি নির্বাচিত হন। ২০০৯ সালে গোবিন্দগঞ্জ উপজেলা বিএনপির সহ-সভাপতি নির্বাচিত হয়ে বর্তমানে ওই পদেই আছেন। ২০১০ সালে জাতীয়তাবাদী স্বেচ্ছাসেবক দলের কেন্দ্রীয় কমিটির যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক নির্বাচিত হন। সর্বশেষ ২০১৬ সালে বিএনপির জাতীয় নির্বাহী কমিটির সদস্য নির্বাচিত হন।

বিএনপির রাজনীতির প্রতি আকৃষ্ট হওয়ার বিষয়ে আমিনুল ইসলাম আজকালের খবরকে বলেন, ১৯৭৭ সালের রাষ্ট্রপতি নির্বাচনে হাঁ-না ভোট চলাকালে জিয়াউর রহমান হঠাৎ করে আমাদের গ্রামের ভোটকেন্দ্রে এসে হাজির হন। তখন আমি অনেক ছোট। বাবার হাত ধরে সকাল থেকেই ওই ভোট কেন্দ্রে অবস্থান করছিলাম। সেই সুবাদে জিয়াউর রহমানের সঙ্গে করমর্দন করার সুযোগ পাই। তখন থেকেই জিয়াউর রহমানের প্রতি আমার বিশেষ আবেগ তৈরি হয়। পরবর্তীতে শহীদ রাষ্ট্রপতি জিয়াউর রহমানের জাতীয়তাবাদী আদর্শের কর্মী হিসেবে কাজ শুরু করি।

আগামী নির্বাচনে অংশগ্রহণের বিষয়ে তিনি বলেন, দীর্ঘদিন ধরেই এলাকার নেতাকর্মীদের পাশে থেকে দলের জন্য কাজ করে যাচ্ছি। সাধারণ মানুষের সুখে-দুঃখে পাশে থাকার চেষ্টা করি। তাই গোবিন্দগঞ্জের বিএনপির নেতাকর্মীসহ সাধারণ মানুষের প্রত্যাশা অনুযায়ী দলের মনোনয়ন চাচ্ছি। আমার রাজনৈতিক অভিজ্ঞতা ও এলাকার জনসমর্থনের বিষয়টি বিবেচনা করে দল আমার প্রতি আস্থা রাখবে বলে আশা করি।

তিনি আরও বলেন, বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে দফতরের কাজে সহযোগিতা করলেও প্রতি সপ্তাহেই এলাকায় ছুটে যাই। দলকে তৃণমূলে শক্তিশালী করা ও নেতাকর্মীসহ সাধারণ মানুষের কাছে দেশনেত্রী খালেদা জিয়ার ঘোষিত ভিশন-২০৩০ নিয়েও আলোচনা করছি। রাজনৈতিক, সামাজিক কর্মসূচি ছাড়াও এলাকার যে কোনো দুর্যোগে মানুষের পাশে থাকি। সম্প্রতি গোবিন্দগঞ্জে বন্যায় ক্ষতিগ্রস্তদের মাঝে দলের পক্ষ থেকে ত্রাণ বিতরণ করেছি। এছাড়াও এলাকার অসহায় মানুষদের চিকিৎসাসেবাসহ অন্যান্য যে কোনো সমস্যায় সাধ্যমতো সহযোগিতা করার চেষ্টা করি।

আমিনুল ইসলাম বলেন, রাজনীতির কারণে ওয়ান ইলেভেনের সময় অনেক হামলা-মামলা মোকাবিলা করেছি। তারপরও শহীদ রাষ্ট্রপতি জিয়াউর রহমানের আদর্শ বাস্তবায়নে আমার সামর্থ্যরে সবটুকু দিয়ে কাজ করছি। বিএনপি করার কারণে কলেজের অধ্যাপনার চাকরিটাও চলে গেছে। তাতেও কোনো দুঃখ নেই। দলের চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া আমার ত্যাগ ও শ্রমের মূল্য হিসেবে জাতীয় নির্বাহী কমিটির সদস্য মনোনীত করেছেন তার জন্য কৃতজ্ঞতা জানাই।

একাদশ নির্বাচন নিয়ে তিনি বলেন, বর্তমান ক্ষমতাসীন অবৈধ সরকারের প্রতি দেশের জনগণের কোনো আস্থা নেই। সুষ্ঠু নির্বাচন হলে গাইবান্ধা জেলার সব ক’টি আসনে বিএনপি বিজয়ী হবে ইনশাআল্লাহ।

তিনি আরও বলেন, দেশনেত্রী ঘোষিত বিগত দিনে যে কোনো আন্দোলন-সংগ্রামে গাইবান্ধার গোবিন্দগঞ্জের বিএনপিসহ ২০ দলের নেতাকর্মীরা সর্বোচ্চ সাহসী ভ‚মিকা পালন করেছেন। এজন্য সরকারের আইনশৃঙ্খলা বাহিনী কর্তৃক নির্যাতনের শিকারও হতে হয়েছে তাদের। সাধারণ মানুষও আওয়ামী লীগ ও প্রসাশনের এসব নির্যাতন থেকে রেহাই পায়নি। জনগণ সরকারের এসব অপকর্ম ও নির্যাতনের জবাব দিতে অপেক্ষা করছে।

জনপ্রতিনিধি নির্বাচিত হলে এলাকার উন্নয়নমূলক কাজের বিষয়ে আজকালের খবরকে আমিনুল ইসলাম বলেন, অবহেলিত গোবিন্দগঞ্জের সার্বিক উন্নয়নে আমি সাধ্যমতো কাজ করব। তৃণমূলে দলকে সাংগঠনিকভাবে শক্তিশালী করার জন্য চেষ্টা করব। শিক্ষার সম্প্রসারণের মাধ্যমে দক্ষ জনশক্তি তৈরি করে তরুণদের কর্মসংস্থানের ব্যবস্থা করব। অবকাঠামোগত উন্নয়নের পরিকল্পনা হাতে নিয়ে দ্রæত তা বাস্তবায়নের উদ্যোগ নেব।

আগামী দিনের আন্দোলন-সংগ্রামের বিষয়ে তিনি বলেন, বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার নেতৃত্বে চলমান আন্দোলনকে সফল করতে হলে দলের নেতাকর্মীদের ইস্পাত কঠিন ঐক্য গড়ে তুলতে হবে। জনগণের অধিকার আদায়ের এ আন্দোলনে সব শ্রেণি-পেশার মানুষকে সম্পৃক্ত করতে হবে। জনগণের ঐক্যবদ্ধ প্রয়াসই বর্তমান দুঃশাসন থেকে জাতিকে মুক্ত করতে পারে।

আজকালের খবর/এসএ



সর্বশেষ সংবাদ
আরো খবর ⇒
সর্বাধিক পঠিত
সম্পাদকমণ্ডলীর সভাপতি : গোলাম মোস্তফা || সম্পাদক : ফারুক আহমেদ তালুকদার
সম্পাদকীয়, বার্তা ও বাণিজ্যিক কার্যালয় : আজিজ ভবন (৫ম তলা), ৯৩ মতিঝিল বাণিজ্যিক এলাকা, ঢাকা-১০০০।
ফোন : +৮৮-০২-৪৭১১৯৫০৬-৮। বিজ্ঞাপন : +৮৮০১৭৮৭-৬৮৪৪২৪, ০১৭৯৫৫৫৬৬১৪, সার্কুলেশন : +৮৮০১৭৮৯-১১৮৮১২
ই-মেইল : newsajkalerkhobor@gmail.com, addajkalerkhobor@gmail.com
© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত দৈনিক আজকালের খবর
Web : www.ajkalerkhobor.com, www.eajkalerkhobor.com