বৃহস্পতিবার, ২৯ জুন, ২০১৭
নবাব ও বস ২ মুক্তি না দিলে হল বন্ধের হুমকি
আনন্দমেলা প্রতিবেদক
Published : Monday, 19 June, 2017 at 4:06 PM

নবাব ও বস ২ মুক্তি না দিলে হল বন্ধের হুমকি

যৌথ প্রযোজনায় নির্মিত ‘নবাব’ ও ‘বস ২’ ছবি দুটি ঈদে মুক্তি না পেলে দেশের সিনেমা হল মালিকরা বড় ধরণের লোকসানের মুখোমুখি হবেন। এমনটা হলে হল বন্ধ করা ছাড়া উপায় থাকবে না বলে জানিয়েছেন তারা। অপরদিকে শাকিব খান যৌথপ্রযোজনার নামে ‘প্রতারণা’ বন্ধে আন্দোলনকারীদের ‘স্টুপিড’ বনে মন্তব্য করেছেন।

সংগঠন দুটির নেতারা এবং জাজ মাল্টিমিডিয়া রবিবার সন্ধ্যায় রাজধানীরর একটি রেস্তোরাঁয় সংবাদ সম্মেলন ডাকেন। সেখানে নুসরাত ফারিয়াও উপস্থিত ছিলেন। নেতারা বলেন, ‘গেল বছর রমজানের ঈদে দুটি ব্যবসাসফল ছবি শিকারি ও বাদশা আমরা পেয়েছিলাম। ছবি দুটিতে আশাতীত ব্যবসা করায় সিনেমা হল মালিক, বুকিং এজেন্ট, প্রযোজক-পরিবেশক সকলেই লাভবান হয়েছিলাম।

‘চলচ্চিত্র প্রদর্শক সমিতি’র সভাপতি নওশাদ আহমেদ বলেন, ‘আমরা তথ্যমন্ত্রীর সাথে মিটিং করেছি সকালে। আমরা বলেছি পুরো রোজা আমরা হল বন্ধ রাখি। এরপর ঈদে যদি ভাল ছবি না পাই তাহলে হল বন্ধ করে দিব। মন্ত্রী আমাদের বলেছেন, রোজার ঈদ সবচেয়ে বড় উৎসব আমাদের, এ সময় হল বন্ধ থাকলে মানুষ কিভাবে ঈদ করবে।’

নওশাদ বলেন, ‘ওরা (আন্দোলনকারীরা) হুট করে যৌথ প্রযোজনার বিরুদ্ধে লাগল কেন। যেখানে ভারতীয় ছবি আমদানি করা হচ্ছে?’

মধুমিতা হলের এ মালিক বলেন, ‘এফডিসির এমডি বলেছেন, শিল্পী সমিতির কাছে ৯৯ লাখ টাকা পাবে এফডিসি ভাড়া বাবদ। তাকে আমরা বলেছি আমাদেরকে (প্রদর্শক সমিতি) অফিস দিতে, আমরা ভাড়া দিব।’

তিনি দাবি করেন, ‘আমাদের সাথে মন্ত্রণালয়ের মিটিংয়ে শাকিব খান, ফারিয়া ছিল। প্রধান শিল্পীরাই যদি আন্দোলনে না থাকে কারা আন্দোলন করছে।’

আপনারা হল মালিক বা বুকিং এজেন্ট। সিনেমার ব্যবসায়ের সঙ্গে আপনারা কেন জড়াবেন? আপনাদের তো উচিত মুক্তির অপেক্ষায় থাকা সবগুলো ছবির সুন্দর ডিস্ট্রিবিউট করা। সব পরিচালক ও প্রযোজকদের পাশে থাকা- এই পাল্টা প্রশ্নের জবাবে হল মালিকদের নেতা নওশাদ বলেন, ‘এইসব প্রশ্ন অবান্তর। হল মালিকরা যেখানে ব্যবসা পাবে সেখানেই যাবে। ‘নবাব’ ও ‘বস টু’ বিগ বাজেটের ছবি। যৌথ প্রযোজনার বিগ বাজেটের ছবি। এগুলো ব্যবসা করবেই। লোকাল ছবিগুলো ব্যবসা করতে পারছে না গেল কয়েক বছর ধরেই।’

আপনি মনে হয় জানেন না গেল বছরের ঈদে ‘বসগিরি’ ও ‘শুটার’ সুপারহিট হয়েছে। সেগুলো কিন্তু লোকালই ছিলো। তবে এই কথা আপনি কেমন করে বলেন? লোকাল ছবি ব্যবসা করে না? শাকিব খানের লোকাল ছবি দেশে চলে না? যদি তাই হতো ‘বসগিরি’ ও ‘শুটার’ কেমন করে হিট করলো। আর ‘রাজনীতি’ ও ‘রংবাজ’ বিগ বাজেটের ছবি। তারমধ্যে ‘রংবাজ’ও যৌথ প্রযোজনার। দুটি ছবিই শাকিব খানের। এই ছবিগুলোর কথা না ভেবে আপনারা সবাই কেবলমাত্র ‘বস টু’ ও ‘নবাব’র মুক্তি নিয়ে এত সিরিয়াস কেন?

অভিজ্ঞতা বলে, এই দুটি ছবি চালিয়েও তো আপনাদের মুনাফা উঠে আসবে। তবে সিনেমা হল বন্ধ করার ঘোষণা দিচ্ছেন কী করে? আপনাদের কী মনে হয় না এই দুটি ছবি নিয়ে আপনাদের বিশেষ অবস্থান বা পক্ষপাতিত্ব রয়েছে? কারণ, হল মালিকরা ও বুকিং এজেন্টরা ইন্ডাস্ট্রির সবার কাছে সমান।

সাংবাদিকদের এই প্রশ্নের জবাবে প্রদর্শক সমিতির নেতা ইফতেখার আহমেদ নওশাদ বলেন, ‘ঈদে চারটি ছবি আসবে। যে ছবিতে আমরা স্বস্তিবোধ করবো সেই ছবিই চালাবো।’

যদি তাই হয় আপনাদের নীতি বা সিস্টেম তবে ব্যানারে ‘সিনেমা হল বাঁচলে সিনেমা বাঁচবে’ এমন মিথ্যে মানবিকতার স্লোগান আমাদের কেন দেখান? সিনেমা সেন্সর পাওয়ার আগেই আপনারা কিছু ছবি নেয়ার জন্য বুকিং দিয়ে ফেলেন। এবং এটা দেখা যায় যৌথ প্রযোজনা বা সাফটা চুক্তিতে আসা ভারতীয় ছবির ক্ষেত্রে। অথচ লোকাল ছবির প্রতি আপনাদের বিন্দুমাত্র আগ্রহ দেখা যায় না। সেটা শাকিব খানের ছবি হলেও আপনারা এড়িয়ে যান। শাকিব খানকে তারই বিপক্ষে দাঁড় করিয়ে দেন। এটা কি ঠিক?

সাংবাদিকদের এই প্রশ্নে ক্ষেপে যান হল মালিক নেতা। তিনি সাংবাদিকদের তথাকথিত চলচ্চিত্র পরিবারের হয়ে প্রশ্ন উত্থাপন করছেন বলে দাবি করেন। এই মন্তব্যে সাংবাদিকরাও ক্ষোভ প্রকাশ করে অনুষ্ঠান ত্যাগ করার সিদ্ধান্ত নেন। পরে আব্দুল আজিজ, নাদের চৌধুরী ও শিবা সানুর মধ্যস্থতায় সাংবাদিকরা অনুষ্ঠানে পুনরায় যোগ দেন।

আজকালের খবর/আতে


সর্বশেষ সংবাদ
আরো খবর ⇒
সর্বাধিক পঠিত
সম্পাদকমণ্ডলীর সভাপতি : গোলাম মোস্তফা || সম্পাদক : ফারুক আহমেদ তালুকদার
সম্পাদকীয়, বার্তা ও বাণিজ্যিক কার্যালয় : সুমনা গণি ট্রেড সেন্টার, (৪ তলা) প্লট-২, পান্থপথ (সার্ক ফোয়ারা মোড়), ঢাকা।
ফোন : ০২-৫৫০১৩২১৪ ফ্যাক্স : ০২-৫৫০১৩২১৫, বিজ্ঞাপন : ০১৭৮৭৬৮৪৪২৪, সার্কুলেশন : ০১৭৮৯১১৮৮১২
ই-মেইল : newsajkalerkhobor@gmail.com, addajkalerkhobor@gmail.com
© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত দৈনিক আজকালের খবর
Web : www.ajkalerkhoborbd.com, www.eajkalerkhobor.com